ঢাকা শুক্রবার, ১৪ই মে ২০২১, ৩১শে বৈশাখ ১৪২৮


করোনাকে পুঁজি করে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি!


প্রকাশিত:
১৭ এপ্রিল ২০২১ ১৬:৪১

আপডেট:
১৪ মে ২০২১ ০৩:০৮

এম এ করিম, নিউজ ডেস্কঃ মানুষ সামাজিক জীব আর তাই মানুষ সমাজে বসবাস করে থাকে এতে করে মানুষ প্রয়োজনের তাগিদে একে অপরের সাথে লেনদেন সহ দৈনন্দিন অতিপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের আদান প্রদান করে থাকে তাছাড়াও দৈনন্দিন জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো ব্যাবসা বানিজ্যের ক্রয়বিক্রয়।

প্রতিদিনের ব্যবহারিক জীবনে ব্যবসা-বাণিজ্যের পণ্যমূল্য বিনিময় সম্পন্ন হয়ে থাকে তবে বৈশ্বিক মহামারী করোনা দুঃসময় কে পুঁজি করে নিত্যপণ্যের দ্রব্যমূল্যের প্রয়োজনীয় সব দ্রব্য মূল্যের কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করেছে।তবে সামাজিক দৃষ্টিকোণ থেকে ক্রেতা ও বিক্রেতার মাঝে পণ্য দ্রব্যের সঠিক মূল্যনির্ধারণ আদান-প্রদানে কামনা করেছে সাধারন জনগন।

সম্প্রতি করোনাকালীন সময় কে মূল হাতিয়ার ও তার সাথে রমজানকে উপলক্ষ করে দৈনন্দিন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করে তুলছে এক ধরনের অসাধু ব্যবসায়ী মহল।তাছাড়াও ভিন্ন কৌশল অবলম্বনে দৈনন্দিন নিত্য ভোগ্য পণ্য দ্রব্য সামগ্রি চড়া দামে তুলে ধরছে বাজারকে।

এদিকে অস্বাস্থ্যকর পণ্যবাজার সৃষ্টি করছে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী মহল এতে করে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি হওয়ায় ক্রেতা ভোক্তারা ভয়ঙ্কর প্রতারণার ফাঁদে পড়ছে।এবং বিক্রেতা স্ব-ইচ্ছায় পণ্যের বাজার ঊর্ধ্বগতি তুলে ধরছে এতে ক্রেতা ও বিক্রেতার মাঝে পণ্য দ্রব্য ক্রয় বিক্রয় নিয়ে নানা ঝামেলা সৃষ্টি দেখা দেয়।

তাছাড়া ক্রেতা-বিক্রেতার মাঝে পণ্যদ্রব্যের মূল্যনির্ধারণে দরকষাকষি নিয়েও ব্যাপক ঝামেলা পহাতে হচ্ছে দু'পক্ষের মধ্যে,করোনার দুঃসময় নিয়ে এসেছে এমন দুর্বল হাতিয়ার পণ্যের চড়া মূল্য,এদিকে ক্রেতা ও ভোক্তার নিরুপায় হয়ে দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় পণ্য দ্রব্য ক্রয় করলেও বিক্রেতা নানা অজুহাতে বাড়িয়ে দেই পণ্যের অধিক মূল্য।এতে করে ভোক্তা পারিবারিক চাহিদা মিটাতে চরম দূর্ভোগ ও নিরুপায় হয়ে প্রয়োজনীয় নিত্য পণ্য দ্রব্য ক্রয় করছে জনগণ।

ক্রেতারা মনে করেন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য কৃত্রিম সঙ্কট অনেকটাই মজুতদারী বলে ধারণা করছেন,তাছাড়া মজুদদারির মাধ্যমে কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পণ্যদ্রব্য গুদামজাতে আটক রেখে অস্বাভাবিক বাজার গড়ে তুলছে পণ্যমূল্যের,এতে করে পণ্যের ঊর্ধ্বগতি দাম বৃদ্ধি রাখে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী আর তাই বাজারে সৃষ্টি হচ্ছে দ্রব্যমূল্যের কৃত্রিম সঙ্কট।

অস্বাস্থ্যকর বাজার গড়ে তুলে ঊর্ধ্বগতিতে অধিক মুনাফা লাভের লালসায় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য দ্রব্য গুদামজাত করে রেখে সুষ্ঠু বাজারকে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে তুলছে একশ্রেণীর ব্যবসায়ী মহল।

তবে মারাত্মক ভয়াবহ করোনাকালীন দুঃসময়ে দেশের সরকার করোনার প্রাদুর্ভাব দমনের পাশাপাশি ভোক্তা বাজারে স্পেশাল নিয়ন্ত্রণ একটি মনিটরিং সেল গঠন করে তুললে সরকারের গঠিত সেল প্রতিনিয়তই করোনার দুঃসময় ও রমজানে বাজার পরিদর্শন ও পণ্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি বা বাজারের কোনো অনিয়ম দৃষ্টিগোচর হলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থায় গ্রহণে জনগণ বাজার প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির হাত থেকে অনেকটা রেহাই পাবে।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: