ঢাকা বৃহঃস্পতিবার, ৬ই আগস্ট ২০২০, ২৩শে শ্রাবণ ১৪২৭


জলাবদ্ধতা নিরসনে এমপির নির্দেশেও কাজ শুরু হয়নি লালপুরে


প্রকাশিত:
২৯ জুলাই ২০২০ ২২:১৫

আপডেট:
২৯ জুলাই ২০২০ ২২:২২

নিউজ ডেস্ক : দু'দিনের মধ্যে বসন্তপুরের বিলের মাছ তুলে খাল উন্মুক্ত করে জলাদ্ধতা নিরসনে এমপির নির্দেশও কাজ শুরু হয়নি। ফলে লালপুরের প্রায় ৩ হাজার পরিবারসহ ২২ গ্রাম পানিবন্দী রয়েছে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায় , নাটোরের লালপুর উপজেলার ৮ নং দুড়দুড়ীয়া ইউনিয়নের বসন্তপুরের বিলের পাড়ের রাধাকৃষ্ণপুর , মির্জাপুর ,ওমরপুর ,দুড়দুড়ীয়া ,মনিহারপুর ,জৌতগোরি , ভেল্লাবাড়ীয়া ,গন্ডবিল , আট্রীকা ,বেরিলাবাড়ীয়া , বসন্তপুর , রাজশাহীর বাঘা উপজেলার খুদিছয়ঘঠি , চন্ডিপুর , জৌতরাঘোব , জৌতজয়রাম , সায়েস্তা , চকএনায়েতপুরসহ ২২ গ্রামের পানি নিস্কাশনের জন্য ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে ১৯৯৪-৯৫ তে তৎকালিন দুড়দুড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল আলম মক্কেল মাষ্টার খাল খনন করেন । এ খাল খনন করায় যেমন পানিস্কিাশনে সফলতা আসে , তেমনি কয়েক হাজার একর জমিতে কৃষকরা ফসল আবাদ করে সুফল পায় ।

এ এলাকার মানুষ নতুন করে স্বপ্ন দেখতে শুরু করে। জমি দস্যুদের কুনজরে পড়ে বিলের জমি। যে চেয়ারম্যানের সময় খাল খনন করা হয় তারই সহযোগিতায় প্রথমে খাল দখল ,পর্যায় ক্রমে ব্রীজের মুখ বন্ধ করে প্রায় দেড় শতাধিক পুকুর খনন করা হয়েছে । বিগত কয়েক দিনের অবিরাম বৃষ্টিতে কয়েক হাজার পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়ে । বাড়ির উঠানে ও ঘরের মেঝেতেও পানি উঠে , ডুবে যায় বিদ্যালয়ের অঙ্গিনা। ক্ষতি হয়েছে ফসলের ।

সোমবার ( ২৭ জুলাই ) নাটোর ১ , ( লালপুর - বাগাতীপাড়া ) আসনের সংসদ সদস্য শহীদুল ইসলাম বকুল ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন ও নগদ অর্থ বিতরন কালে বলেন লালপুরে বসন্তপুর বিলে দু’দিনের মধ্যে মাছ তুলে নিয়ে খাল উন্মুক্ত করে দিন।

তিনি আরো বলেন, সামনে পবিত্র ঈদুল আযহা আর এ সময় আমার এলাকার মানুষ পানি বন্দী হয়ে থাকবে এটা হতে পারে না। তাই যাদের পুকুর আছে তারা দু’দিনের মধ্যে মাছ তুলে নিয়ে খাল উন্মুক্ত করে দিন। দু’একজনের জন্যে হাজার-হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে তারা আজ ঘরছাড়া, গৃহ ছাড়া। এটা হতে দেওয়া হবে না। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দশনা দেন।

মঙ্গল বার ( ২৮ জুলাই) সকাল থেকেই পানিবন্দী মানুষকে মুক্ত করতে ৮ নং দুড়দুড়ীয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান ও সাবেক চেয়ারম্যান আজিজুল আলম মক্কেল মাষ্টারের নেতৃত্বে কাজ শুরু হওয়ার কথা থাকলেও বুধবার ১১ টা পর্যন্ত শুরু হয়নি। তবে সড়ক কেটে বিছিন্ন ভাবে পানি বের করার চেষ্টা করছে।

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান বলেন, কাজ শুরু করতে পারিনি, বিষয়টি নিয়ে মিটিংএ বসছি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মুল বানীন দ্যুতি বলেন চেয়ারম্যানকে নিদেশ দেওয়া হয়েছে, প্রয়োজনে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: