ঢাকা শুক্রবার, ১৪ই মে ২০২১, ৩১শে বৈশাখ ১৪২৮


করোনায় শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নিয়ে নতুন পরিকল্পনা


প্রকাশিত:
২৩ এপ্রিল ২০২১ ১৭:৫৬

আপডেট:
১৪ মে ২০২১ ০৩:২০

নিউজ ডেস্কঃ মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে ১৩ মাস ধরে বন্ধ দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকায় শিক্ষায় অপূরণীয় ক্ষতি হচ্ছে। এ ক্ষতি পুষিয়ে নিতে চলছে বিস্তর গবেষণা।

জানা যায়, অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার মতো এবার অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়ার চিন্তা ভাবনাও করা হচ্ছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কীভাবে অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়া হয় সে বিষয়ে ইতোমধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয় দুই পৃথক কমিটি কাজ করছে।

সূত্র মতে, মাধ্যমিক স্তরের কমিটি এরই মধ্যে এক দফা বৈঠক করেছে। দুই কমিটির প্রতিবেদন পেলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

গত ৮ এপ্রিল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের পাবলিক পরীক্ষা আয়োজনে গঠিত সুপারিশ কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর নেহাল আহমেদের নেতৃত্বে প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় অনলাইনে পাবলিক পরীক্ষার নেওয়ার সম্ভাব্যতা যাচাই এবং অন্যান্য দেশের পরীক্ষা নেওয়ার পদ্ধতি ও ফলাফল কি তার একটি প্রতিবেদন তৈরি করতে টেকনিক্যাল কমিটিকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

কমিটির সদস্য ও মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) প্রফেসর শাহেদুল খবির চৌধুরী বলেন, সর্বশেষ বৈঠকে কমিটির সদস্যরা অনলাইন পরীক্ষার নানা দিক নিয়ে আলোচনা করেছেন। বিদেশে অনলাইনে বিভিন্ন পরীক্ষা কীভাবে নেয়া হয় এবং বাংলাদেশে নিলে কী চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে তা যাচাই-বাছাই করে একটি প্রতিবেদন দেবে কমিটি। প্রতিবেদনের ভালো ও খারাপ দিকগুলো দেখে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। শিগগিরই দ্বিতীয় বৈঠক ডাকা হবে। অন্য দিকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের বিভিন্ন পরীক্ষা অনলাইনে নেওয়ার সক্ষমতা যাচাই করার কমিটি আগামী ২৫ এপ্রিল সভা ডেকেছে।

বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের কমিটির আহ্বায়ক ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. দিল আফরোজা বেগম বলেন, লকডাউনের কারণে বৈঠক ডেকেও বসা সম্ভব হয়নি। আগামী ২৫ এপ্রিল প্রথম সভা ডাকা হয়েছে। কমিটির প্রয়োজনে চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ের চারজনকে নতুন করে কো-অপ্ট (যোগ) করেছি।

তিনি আরও বলেন, দেশ-বিদেশে কীভাবে অনলাইনে পরীক্ষা নেয়া হয় এবং বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে তা কতটুকু সম্ভব, বিশেষজ্ঞদের তার একটি প্রতিবেদন নিয়ে আসতে বলা হয়েছে। তাদের সুপারিশের আলোকে পরবর্তী সিদ্ধান্ত হবে।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: